fbpx

Select Your Favourite
Category And Start Learning.

শিশুদের অভিনয় বা RolePlay: কেন এবং কিভাবে খেলবেন?

শিশুর বয়স ১ থেকে দেড় বছর বয়স হলেই প্রথম এরকম অভিনয়ের প্রথম নমুনা দেখা যায়। দেড়-দুই বছরের শিশুরা তাদের পুতুলের মুখে খাবার দেয়ার ভান করে। অথবা মা-বাবার মোবাইল কানে দিয়ে কথা বলার চেষ্টা করে। এই বয়সে এই খেলাগুলো শিশুরা সাধারণত একা একাই খেলে। দুই বছরের পর থেকেই আস্তে আস্তে অন্য কারোর সাথে খেলার আগ্রহ তৈরি হয়। সাধারণত ৩-৪ বছর বয়সে যেয়ে এই RolePlay বা মিছা-মিছি খেলাগুলো আরও ইন্টারেক্টিভ হয়, যদিও এই বয়সেও সে নিজে নিজে তার গাড়ি, পুতুলের ঘর, ডাক্তার হওয়ার সরঞ্জাম নিয়ে নিজে নিজেই খেলে।

তিন থেকে ছয় বছর বয়সকে মনে করা হয় এই ইমাজিনেটিভ বা মিছা-মিছি খেলার (RolePlay Games) স্বর্ণকাল। জীবনের আর কোন বয়সেই সবকিছুকে নিয়েই ফ্যান্টাসির জগত তৈরি করতে সে পারবে না। এই বয়সেই তাই আপনার শিশুর দিকে কিছু বিশেষ মনোযোগ দিতে হবে। পরে সারাজীবন সেটার সুফল ভোগ করবেন।

মিছামিছি খেলা বা RolePlay কেন উপকারি?

ভাষার দক্ষতা বাড়ায়

আপনার শিশু যখন তার পুতুলকে ঘুম পাড়াচ্ছে বা গাড়ি নিয়ে খেলছে আর আপনমনে কথা বলছে, কখনও কি খেয়াল করে শুনেছেন সে কি বলছে। যদি খেয়াল করেন তাহলে অবাক হয়ে যাবেন যে সে এমন সব শব্দ ব্যাবহার করছে যে আপনার ধারণাই ছিলনা যে আপনার শিশু জানে।

শিশুরা মা-বাবা, শিক্ষক বা বড়দের হুবুহু অনুকরণ করে বিভিন্ন কথা বলতে পারে। এবং খেয়াল করে দেখবেন আপনার অনেক কথাই যেগুলো আপনি তাকে বলেছেন সেগুলো সে তার পুতুলের সাথে বলছে। এই ধরণের মিছামিছি খেলা তাকে ভাষার ব্যাবহার করতে শেখায়। এর মাধ্যমে সে কথা এবং লেখার ভাষার মধ্যে একটা সংযোগ ঘটানো শেখে। এবং এটা পরবর্তীতে তাকে দ্রুত পড়া শিখতে সাহায্য করে।

চিন্তাশক্তি বাড়ায়

মিছামিছি খেলতে যেয়ে শিশুরা অনেক ধরণের সমস্যাই সমাধান করে – দুজনের মধ্যে কে অমুক চরিত্র করবে থেকে শুরু করে পুতুলের জন্য কি খাবার দেয়া যায় ইত্যাদি অনেক কিছুই তাদের নিজেদের বের করতে হয়। চিন্তা করে সমস্যা সমাধান করার এই দক্ষতা তার সারাজীবন কাজে লাগবে পরবর্তীতে।

কল্পনাশক্তি বা Imagination বাড়ায়

অনেক মিছামিছি খেলাতেই আসলে বড়দের নকল করার একটা ব্যাপার চলে আসে। শিশুরা এর মধ্যে বুঝতে পারে কিছুটা যে বড় হওয়া ব্যাপারটা আসলে কি। এছাড়া বিভিন্ন রোলে যেমন ডাক্তার, বাস ড্রাইভার, প্লেনের পাইলট, অভিনেতা, অথবা ব্যাটমান অথবা স্পাইডারম্যান হতে গেলে কি ধরণের দায়িত্ব পালন করতে হয় সেগুলো সম্পর্কেও তাদের ভালো একটা ধারণা তৈরি হয়। এ থেকে সে ভবিষ্যতে কি হতে চায়, কি করতে চায়, তার ভালো লাগার জায়গাগুলো কি – এসব বেরিয়ে আসে।

সামাজিক এবং ইমোশনাল দক্ষতা  (Social & Emotional Intelligence) বাড়ায়

মিছামিছি বা RolePlay র সবচেয়ে বড় উপকারিতা হচ্ছে এটি। শিশুরা সাধারণত নিজস্ব একটি জগত তৈরি করে রাখে যেখানে সবকিছু তাকে ঘিরেই আবর্তিত হয়। তাই তাদের প্রতি মনোযোগের ঘাটতি হলেই দেখবেন আপনার দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য বিভিন্ন জিনিস সে চেষ্টা করতে থাকে। RolePlay র মাধ্যমেই প্রথম সে অন্য কারোর ভূমিকায় অভিনয় করে। এই প্রথম সে নিজে ছাড়া অন্য কারোর জায়গায় নিজেকে রাখে। এতে করে শিশুর মধ্যে পরবর্তীতে অন্যর প্রতি সহমর্মিতা বৃদ্ধি পায়।

RolePlay তে সে যখন দেখে সে কল্পনা করলেই যে কেউ হতে পারে, এতে করে তার মধ্যে কনফিডেন্স বাড়ে যে সে চাইলেই অনেক কিছু হতে পারে। পাশাপাশি শিশুর মেমোরি বাড়ায়, creative হতে সাহায্য করে এবং নানা ধরণের সামাজিক দক্ষতা বাড়ায়। সে অন্যর সাথে যৌথভাবে কাজ করতে শেখে এবং কম্প্রোমাইজ করতে শেখে।

Role Play খেলাতে আপনি যেভাবে সাহায্য করতে পারেন

শিশুর সাথে আপনি যদি এরকম মিছামিছি বা RolePlay তে অংশ নেন তাহলে খেয়াল রাখবেন যেন আপনি আবার তাকে গাইড করে বা বেশি বেশি সাজেশন দিয়ে খেলার কন্ট্রোল তার কাছ থেকে নিয়ে না নেন। তাকে তার মত খেলা এগিয়ে নিতে উৎসাহ দিন, সাহায্য করতে পারেন কিছু কিছু… চেষ্টা করুন ও যেভাবে বলছে আপনি সেটা করছেন ঠিকমতো।

 

RolePlay র জন্য আসলে তেমন কিছুই দরকার পড়ে না আলাদাভাবে। ঘরে তার যেসব খেলনা আছে, আর সাথে পুরনো নানা জিনিস যেমন ভাঙা মোবাইল, ফোন, হাড়ি-পাতিল, কার্ডবোর্ড ইত্যাদি থাকলেই হয়। RolePlay করে সেইসব শিশুরা বেশি যারা ছোটবেলা থেকে বেশি গল্পের বইয়ের সান্নিধ্য পায়। এক্ষেত্রে অভিভাবকদের অনেক বড় একটি দায়িত্ব হল শিশুর বয়স যখন ২-৩ বছর হবে তখন থেকেই তাদেরকে গল্পের বই পড়ে শুনানো।

৩-৮ বছর বয়সী শিশুদের জন্য প্রায় ২০০ বইয়ের একটি তালিকা আমরা করেছিলাম আগে। নিচের ছবিতে ক্লিক করে সেটি দেখতে পারেন। কোন ধরণের বইগুলো কেনা যেতে পারে সেক্ষেত্রে চমৎকার একটি ধারণা পাবেন।

Kids Time school

বইয়ের তালিকাটি পেতে ক্লিক করুন এখানে।

আমাদের Kids Time থেকে করা Storymaking (গল্প তৈরির কোর্সটিতে) রোল প্লের বেশ কিছু মজার কাজ আছে। শিশুরা তাদের বাছাই করা বিভিন্ন চরিত্র দিয়ে বিভিন্ন গল্প তৈরি করে নিজের মত। কোর্সটির ভিডিও দেখতে পারেন এখানে। এরকম কাজগুলো বাসায় করতে উৎসাহ দিন শিশুকে। নিজেও শিশুকে সময় দিন। আপনি হয়ে যান তার রোল প্লের সাথী।

https://www.youtube.com/watch?v=bQXTeSk5Dq4

 

শহর এলাকা বিশেষ করে যেসব শিশুরা ঢাকায় বড় হচ্ছে তাদের ক্ষেত্রে যেহেতু বাইরে যেয়ে খেলার সুযোগ কম, তাদের জন্য এই মিছামিছি খেলা বা RolePlay তার মানসিক ব্যায়াম করাতে সাহায্য করে অনেক। শারীরিক ব্যায়াম যেহেতু হচ্ছে না খুব একটা, মানসিক ব্যায়ামটা যেন বাদ না পড়ে কোনোমতেই।

………………………………………………………………………………………

৪-১০ বছর বয়সী শিশুদের Future Skills যেমন creativity, problem solving skill এবং emotional intelligence বাড়ানোর জন্য Kids Time Center এ আমরা নিয়মিত মজার কিছু কোর্স করাচ্ছি।বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন নিচের ছবিতে।

Kids Time School

 

 

আমাদের Kids Time Center গুলোর ঠিকানা পাবেন এই লিঙ্কে গিয়ে – লিঙ্ক

অক্টোবর থেকে ভর্তি শুরু হওয়া আমাদের Winter Batch এর কোর্স বিস্তারিত এবং অন্যান্য তথ্য জানতে সরাসরি কল করতে পারেন নিচের এই নাম্বারগুলোতেঃ

ধানমন্ডি- ০১৯৬৮ ৭৭৪০১৬

গুলশান- ০১৯৬৮ ৭৭৪০১৯

মিরপুর- ০১৯৬৮ ৭৭৪০১৮

উত্তরা- ০১৯৬৮ ৭৭৪০১৭