fbpx

Select Your Favourite
Category And Start Learning.

আপনার সন্তানের জন্য সঠিক স্কুলটি বাছাই করবেন কিভাবে?

ভর্তি সিজন শুরু হয়েছে দেশে। অভিভাবকদের ঘুম হারাম কোন School এ শিশুকে admission করাবে সেটা নিয়ে। অথবা পছন্দের স্কুলে শিশুকে admission করাতে পারবে কিনা? জেনে নিন শিশুকে School এ ভর্তি করানোর ব্যাপারে কোন ৫টি বিষয় মাথায় রাখতে হবে আপনার।

এক্ষেত্রে কোন স্কুল কত নামকরা, নিজে ওই স্কুলে ছোটবেলা পড়েছিলাম তখন তো ভালো ছিল, এখানে অমুক বিদেশি কারিকুলাম ফলো করা হয় – এসব বিষয়গুলোর চেয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আছে বিবেচনার। এবং সেগুলো আপনার সন্তানের ভবিষ্যতের কথা বিবেচনা করেই বলা হয়েছে।

শিশুকে স্কুলে ভর্তির ব্যাপারে ঠিক প্রশ্নটি নিজেকে করছেন কি?

আপনি এই বছর আপনার শিশুকে স্কুলে ভর্তি করাচ্ছেন মানে হচ্ছে আজকে থেকে প্রায় ২০ বছর পর আপনার শিশু পড়াশুনা শেষ করে কোন একটা Profession এ প্রবেশ করবে। আপনি কি জানেন যে, এখন যেসব শিশুরা ৩-১২ বছর বয়সী তাদের ৭০% শিশু পড়াশুনা শেষ করে এমন একটা কাজে ঢুকবে যার অস্তিত্বই এখন নেই।

২০৪০ সালের দিকের পৃথিবী যেমন হতে যাচ্ছে তার জন্য আপনার শিশুর যে ধরণের স্কিল এখন দিয়ে দেয়া দরকার সেটি ভেবেছেন কি? গবেষণা বলছে যেসব শিশুদের Creativity, Problem-solving skill, Critical thinking, emotional intelligence, collaboration skill থাকবে তাদের সমস্যা হবে না। এবং ফিনল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশ ইতিমধ্যে তাদের স্কুলে এই স্কিলগুলো শেখানোর জন্য কাজ শুরু করেছে সেটাও বেশ কয়েকবছর হয়ে গেছে।

আমাদের দেশের স্কুলগুলোতে যেহেতু এই স্কিলগুলো নিয়ে শেখানো হয় না, তাই সচেতন অভিভাবক হিসাবে অনেকে চাইলেও সুযোগগুলো পাচ্ছেন না। আর এতে করে আমাদের দেশের শিশুদের ভবিষ্যৎ আমরা ঠেলে দিচ্ছি অজানার দিকে।

কিন্তু অভিভাবক হিসাবে আপনি যে কাজটি করতে পারেন সেটি হল, সঠিক স্কুল নির্বাচন। যে স্কুলগুলো কিছুটা হলেও শিশুদের এই ব্যাপারগুলোর দিকে নজর দিচ্ছে সেরকম স্কুলকে বাছাই করুন আপনার সন্তানের জন্য।

২৫ ও ২৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য Evaly- Kids Time Mela 2019 এর জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে উপরের ছবিতে ক্লিক করুন।

আপনার শিশুকে যেকোনো স্কুলে ভর্তি (School Admission) করার ব্যাপারে নিচের এই ৫টি বিষয়ে আগে স্কুলের কাছ থেকে জানুন। তারপর সিদ্ধান্ত নিন এই স্কুলে আপনার শিশুকে ভর্তি করাবেন কিনা।

প্রশ্নগুলোর উত্তরে যদি আপনি সন্তুষ্ট না হন তাহলে আমরা বলবো আপনি অন্য কোন স্কুলে যান এবং সেখানে একই প্রশ্নগুলো করুন। যেখানে আপনি সন্তুষ্ট হবেন সেখানেই আপনার শিশুকে ভর্তি করান। বড় নামের স্কুলের পিছনে না দৌড়ে এবং অনেক অনেক টাকা অপচয় না করে ‘সঠিক স্কুলে’ আপনার সন্তানকে দিন।

স্কুলে ভর্তির আগে এবং স্কুল বদলানোর চিন্তা থাকলে এই ৫ টি প্রশ্ন মাথায় নিয়ে যান।  

What do you teach beside academic curriculum? স্কুলে পড়াশুনার বাইরে শিশুদের কি শেখান আপনারা?

স্কুলে শিশুদের আপনারা কি পড়াশুনার বাইরে আর কি শেখান? কোন কোন বিষয় পড়ানো হয় সেটা আপনি ইতিমধ্যে জানেন। কিন্তু এর বাইরে শিশুদের আর কি শেখানো হয়? কিভাবে স্কুল শিশুদের সৃজনশীলতা বাড়ানো নিয়ে কাজ করছে?

Drawing Class হয়তো থাকে সব স্কুলেই। কিন্তু খালি শিক্ষকের দেখাদেখি আম, কলস আর গ্রামের দৃশ্য কপি করা শিখে কি আসলে সৃজনশীলতা বাড়ে? তাই Drawing Class করানো হয় – খালি এই উত্তরে সন্তুষ্ট থাকবেন না।

Craft class অথবা drawing class হয় এবং সেখানে সৃজনশীলতা শিখছে – এই উত্তর যদি পান তাহলে জিজ্ঞেস করুন যে কিভাবে আপনারা শিশুদের সেই স্কিলগুলো বাড়ার ব্যাপারটি যাচাই করছেন।

স্কুলে কোন বিষয় পড়ানো হচ্ছে তার চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে সেটি কিভাবে পড়ানো হচ্ছে।

How do you teach? কিভাবে আপনারা শিশুদের শেখান?

প্রি-স্কুলে ভর্তির জন্য জানুন একটি ক্লাসে শিক্ষক এবং শিশুর ratio কত? একজন শিক্ষকের জন্য ১৫-২০ জনের বেশি হলে সেই স্কুলে না দেয়াই ভালো।

জানতে চান হোমওয়ার্ক দেয়া হয় কি নিয়মিত? উত্তরে যদি School বলে, হ্যাঁ, নিয়মিত দেয়া হয়, তাহলে জিজ্ঞেস করুন কতটুকু দেয়া হয়। যে স্কুল নিয়মিতভাবে অনেক হোমওয়ার্ক দেয়া নিয়ে গর্ববোধ করে, সেই স্কুল থেকে দূরে থাকাই ভালো।

কত নিয়মিত পরীক্ষা হয় সেটি জিজ্ঞেস করুন। যে স্কুলে যত বেশি পরীক্ষা হয় এক বছরে, সেই School শিশুদের শেখানোর চেয়ে শিশুদের বিভিন্ন জিনিস গেলানোর জন্য এবং সেই অনুযায়ী নাম্বার দিয়ে অভিভাবকদের সন্তুষ্ট করাতে বেশি আগ্রহী। এরকম স্কুল থেকে ১০০ হাত দূরে থাকুন।

আমাদের Kids Time সেন্টারে অনেক শিশু আসে যারা অতিরিক্ত এই চাপে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করেছে। স্কুলের কথা শুনলে তারা ভয় পায়।

স্কুলে বিজ্ঞান শেখানোর জন্য ছোটখাটো শিশুদের উপযোগী কোন ল্যাব আছে কিনা? শিশুদের জন্য লাইব্রেরি আছে কিনা যেখানে শিশুতোষ বাংলা এবং ইংরেজি বই আছে কিনা? সেই গল্পের বইগুলো ক্লাসে কোনভাবে ব্যাবহার করা হয় কিনা?

Are the teachers trained? শিক্ষকরা কি যথাযথ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত?

অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রশ্ন যেটি অভিভাবকরা প্রায় কখনই করেন না। আপনার ৩-৫ বছর বয়সের শিশুকে যিনি পড়ানোর দায়িত্ব পেয়েছেন তিনি আসলে শিশুদের মানসিক বিকাশ এবং তাদের সাথে কিরকম আচরণ করতে হবে সেটি সম্পর্কে কতটা জানেন?

প্রশ্ন করুন স্কুলের শিক্ষকরা কি ধরণের প্রশিক্ষণ পায়। আপনার সন্তান আগামি ১৪-১৫ বছর তার জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়টুকু যার কাছে কাটাবে সে কি তার জন্য আদৌ যথাযথ প্রশিক্ষিত? সে কি জানে কিভাবে ক্লাসরুম ম্যানেজ করতে হয়, সে কি জানে কিভাবে শিশুদের ভিতর আগ্রহ তৈরি করতে হয়, সে কি জানে ভিন্ন ভিন্ন ধরণের শিশুদের কিভাবে ভিন্ন ভিন্ন উপায়ে শেখাতে হয়?

সরকারি স্কুলের শিক্ষকদের বিভিন্ন প্রশিক্ষণ থাকে। ইংরেজি মাধ্যম এবং কিন্ডারগার্টেন স্কুলের বেশিরভাগ শিক্ষকদের কোন ধরণের প্রশিক্ষণ নেই। আমরা বিভিন্ন স্কুলে সার্ভে করে, শিক্ষকদের সাথে কথা বলে জেনেছি যে মাত্র ১০-১৫% শিক্ষকদের আসলে সঠিক প্রশিক্ষণ থাকে।

স্কুলে কাউকে জিজ্ঞেস করুন নতুন শিক্ষক নিয়োগের পর তারা কোথায় এবং কাদের কাছে তাদের প্রশিক্ষণ করায়।

স্কুলের শিক্ষকরা সঠিকভাবে প্রশিক্ষিত এবং দক্ষতাসম্পন্ন কিনা এই বিষয়টি সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব বহন করে। 

How do you evaluate students? কিভাবে আপনি আমার শিশুর মূল্যায়ন করবেন?

শুনেছেন হয়তো যে সরকার থেকে ঘোষণা করা হয়েছে যে ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত কোন পরীক্ষা থাকবে না। তাহলে কিভাবে স্কুল মূল্যায়ন করবে আপনার শিশুকে? আর কেবল কি পরীক্ষায় বেশি নাম্বারই মূল্যায়ন হতে পারে?

ক্যাডেট কলেজে যারা পড়েছেন বা যাদের সন্তানরা পড়ছে তারা জানেন সেখানে পরীক্ষা কেবল একটি মাত্র মূল্যায়ন। এই বাইরেও একজন শিক্ষার্থীর ডিসিপ্লিন, সৃজনশীলতা, নেতৃত্ব গুণ ইত্যাদিও বিবেচনা করা হয়।

স্কুলকে জিজ্ঞেস করুন শিশুদের পরীক্ষার নাম্বার বা রেজাল্টের বাইরে আর কিভাবে তারা evaluate করেন। আধুনিক স্কুলগুলোতে শিশুদের পরীক্ষার রেজাল্টের বাইরেও শিশুদের নিজস্ব আলাদা একটা evaluation থাকে।

মোদ্দা কথা হচ্ছে, খেয়াল রাখুন School কিভাবে আপনার সন্তানকে বছর শেষে evaluate করবে। তারা কি কেবল একটি result sheet ধরিয়ে দিবে বছর শেষে নাকি আপনার সাথে one to one বসে আপনার সন্তানের সবদিক নিয়ে আলোচনা করবে এবং কোন কোন এরিয়াতে (subject না কিন্তু) উন্নয়নের সুযোগ আছে সেটি নিয়ে আলোচনা করবে?

Is your school ready for future? আপনার স্কুল কি ভবিষ্যতের জন্য তৈরি?

আজকে থেকে বছর পাঁচেক পর থেকেই ডিগ্রি আর সার্টিফিকেটের দাম চাকুরিক্ষেত্রে কমতে কমতে তলানিতে যাবে। Google, IBM, Apple এর মতো বড় বড় কোম্পানি ইতিমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে যে তাদের এখানে চাকুরির জন্য কোন ডিগ্রি প্রয়োজন নেই। তাই অভিভাবক হিসাবে আপনার দায়িত্ব হচ্ছে নিজেকেই প্রশ্ন করা যে যে স্কুলে আপনি শিশুকে দিচ্ছেন সেটি কি আপনার শিশুকে ভবিষ্যতের জন্য তৈরি করছে?

আজকে থেকে ১৫-২০ বছর পর আপনার শিশু যখন কর্মক্ষেত্রে ঢুকবে তখন পৃথিবীটা কেমন হবে সে সম্পর্কে কারোর কোন ধারণা নেই।

ভবিষ্যতে যে স্কিলগুলো আপনার সন্তানের লাগবে সেগুলোর জন্য School কিভাবে প্রস্তুত করছে? তারা কি শিশুদের self-learning skill দিচ্ছে যেন আপনার সন্তান কিভাবে নতুন কিছু শিখতে হবে সেটি শিখছে? এখন থেকেই আপনার শিশুকে critical analysis, problem solving, analytical skill এগুলো রপ্ত করতে হবে যেন সে ভবিষ্যতে একজন creative এবং confident adult হিসাবে গড়ে উঠতে পারে।

……………………………………………………………

আবারও একবার প্রশ্নগুলো মনে করিয়ে দিচ্ছি এখানে যে প্রশ্নগুলো আপনি স্কুলকে করবেনঃ  

স্কুলে পড়াশুনার বাইরে শিশুদের কি শেখান আপনারা?

কিভাবে আপনারা শিশুদের শেখান?

শিক্ষকরা কি যথাযথ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত?

কিভাবে আপনি আমার শিশুর মূল্যায়ন করবেন?

আপনার স্কুল কি ভবিষ্যতের জন্য তৈরি?

আপনার করা উপরের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে যদি আপনি কোন উত্তর না পান এবং বেশিরভাগ প্রশ্নের উত্তর যদি ‘না’ হয় তাহলে আপনি কষ্ট করে অন্য আরেকটি স্কুলে যোগাযোগ করুন। স্কুলের বাজারে অমুক স্কুলের সুনাম আছে, সেটি দেখেই খালি নিজের সন্তানকে ওই স্কুলে দেয়ার জন্য উন্মুখ হয়ে যাবেন না। নতুন নতুন কিছু School হচ্ছে যারা হয়তো তেমন জনপ্রিয় না কিন্তু উপরের বিষয়গুলোর দিকে তাদের নজর বেশ ভালো। হয়তো আপনার বাসার কাছেই এমন একটি School আছে। একটু খোঁজ নিয়ে দেখুন। ছোট বলে বা নতুন বলে অবহেলা করবেন না।

আরেকটা অনুরোধ থাকছে। পুরো আর্টিকেলটি সেভ করে রাখুন। যেদিন শিশুকে ভর্তির জন্য স্কুলে নিয়ে যাবেন তার আগে আরেকবার দেখে নিন।

আপনার ফেসবুক থেকে শেয়ার করে আরও অভিভাবকদের দেখার সুযোগ করে দিন।

কয়েক লক্ষ অভিভাবকের যদি আর্টিকেলটি পড়ার সুযোগ হয় এবং এই প্রশ্নগুলো যদি অভিভাবকরা স্কুলদের করা শুরু করে তাহলে দেখবেন আস্তে আস্তে স্কুলরা নিজেরাই এই বিষয়গুলোতে আরও সিরিয়াস হবে। অভিভাবকদের দ্বারাই ধীরে ধীরে আমাদের দেশের স্কুলগুলোতে এবং শিক্ষাব্যবস্থায় পরিবর্তন আসবে।

শিশুদের সৃজনশীলতা বাড়ানো নিয়ে ৪-১০ বছর বয়সী শিশুদের সাথে কাজ করছে Kids Time. 

স্কুলের সার্বিক উন্নয়নের জন্য গত ৩ বছর ধরে বাংলাদেশে কাজ করছে Light of Hope. ইতিমধ্যে ৩০০+ স্কুলের সাথে তারা কাজ করছে। শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের জন্য আছে Teachers Time, শিশুদের সৃজনশীলতা বাড়ানোর জন্য আছে Kids Time, এছাড়া নিয়মিত বিভিন্ন ধরণের কনটেন্ট তৈরি করছে শিশুদের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য।

অভিভাবকদের জন্যও বিভিন্ন অনলাইন কোর্স আছে Teachers Time এ।

শিক্ষকদের দক্ষতা উন্নয়ন, অভিভাবকদের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানো এখন স্কুলের সার্বিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে কোন সহায়তা পেতে চাইলে নিচের ছবিতে ক্লিক করে ঘুরে আসুন Teachers Time এর ওয়েবসাইট থেকে।

সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন এই নাম্বারে 01968774009