শিশুর Shyness: কারণ ও প্রতিকার

শিশুর Shyness: কারণ ও প্রতিকার

July 29, 2019 Behavior and Discipline 0

আমরা অভিভাবকরা চাই আমাদের শিশুরা যেন অনেক কথা বলে আর সাবার সাথে মিলেমিশে থাকে। শিশুদের মাঝে Communication Skills  এ সমস্যা এবং অতিরিক্ত লজ্জা পাওয়া একটি সাধারণ ঘটনা।

আপনি জানেন কেন শিশুরা এমন মিশতে চায়না বা লজ্জা পায়? কারনগুলো হলঃ

১। নতুন পরিবেশঃ নতুন পরিবেশে শিশু গেলে অনেক সময় লজ্জা পায়।

২। এটেনশন ফোবিয়াঃ কিছু শিশু আছে যারা হঠাৎ যদি সবার attention পায় তাহলে ভয় বা লজ্জা পায়।

৩। আত্মবিশ্বাসের অভাবঃ নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাসের অভাবের কারণে শিশুর মধ্যে shyness বা লজ্জা পাওয়ার tendency তৈরি হয়।

কি কি করলে শিশুর এই লজ্জা পাওয়াটাকে কাটিয়ে উঠতে পারবেন?

১। শিশুর চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলা। তার জিজ্ঞেস করা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেয়ার চেষ্টা করা।

২। শিশুর কথা বলার জন্য উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করা ও প্রচুর গল্পের বই পড়া।

৩। বাইরের নতুন মানুষের সাথে নিয়মিত কথা বলা। তাকে স্কুলের বাইরেও অন্য কোথাও নিয়ে যাওয়া যেখানে তার বয়সী আরও বিভিন্ন শিশুর সাথে মিলেমিশে কাজ করার সুযোগ পাবে।

৪। মোবাইল আসক্তির কারণে শিশুরা ছোটবেলা থেকেই অন্যদের সাথে কথা বলার সুযোগ কম পায়। তার মোবাইল আসক্তি কমানোর চেষ্টা করা।

৫। সবার সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলা, গান করা, অভিনয় করা – এই ধরণের কাজে শিশুরা যত বেশি participate করবে তাদের মধ্যে communication skill, social skill এবং shyness তত কমে আসবে।

আপনার শিশুর মধ্যে যদি এই ধরণের কোন সমস্যা থাকে, তাহলে সেটি কাটিয়ে উঠানোর জন্য কখনও জোর করা যাবে না। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। মানসিক Pressure এর কারণে সে আরও shy হয়ে যাবে।

Kids Time এ আমরা যেসব কাজ করি সেগুলোর মাধ্যমে শিশুদের মধ্যে ধীরে ধীরে আত্মবিশ্বাস বাড়ায়, তার shyness কমায় এবং social skill বাড়ায়। কিভাবে আমরা কাজ করি এই ব্যাপারে?

১। আমাদের প্রতিটি ক্লাসে প্রতি ৪-৫ জন শিশুর জন্য একজন করে Facilitator থাকেন।ক্লাসে শিশুরা অনেক কথা আর গল্প বলে আর্ট- ক্র্যাফটের মত ক্রিয়েটিভ কাজগুলো করে। এভাবে কাজ করার মাধ্যমে শিশুরা তাদের এটেনশন ফোবিয়া  কাটিয়ে উঠে।

২। আমাদের ক্লাসরুমে শিশুরা যে কাজই করুক না কেন তার পেছনের গল্পটিও তাদেরকেই বলতে হয়। যেমন ধরুন যদি কোনও শিশু একটি খরগোশ বানায় তবে সে খরগোশের বাড়ি কোথায়? সে কি খেতে পছন্দ করে, তার বাসায় আর কে আছে তার নাম কি এমন আরও অনেক কিছু নিয়ে শিশুদের সাথে কথা বলি আমরা। এভাবে তাদের কথা বলা আর গল্প করার এক উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি হয়।  

৩। আমাদের প্রতিটি শাখায় একটি করে লাইব্রেরী আছে। যেখান থেকে শিশুরা প্রতি সপ্তাহে ২ টি করে তার পছন্দমত বই নিয়ে যায়। বইগুলো থেকে সে বিভিন্ন শব্দ আর শব্দের ব্যবহার শেখে।

৪। ক্লাসরুমগুলোতে বিভিন্ন বয়সের বাচ্চারা একসাথে ক্লাস করে। যে কারণে শিশুরা তার নিজের বয়সী এবং অন্য বয়সী কারও সাথে কিভাবে কথা বলতে হয় তাও শিখে যায়। এভাবে তার আত্মবিশ্বাস বেড়ে উঠে।

আপনার শিশুকে নিয়ে আপনার কাছের যেকোনো সেন্টারে চলে আসতে পারেন রেজিস্ট্রেশন করে। নিচের ছবিতে ক্লিক করে রেজিস্ট্রেশন করতে পারেন।

Kids Time Graduation Program

আমাদের সবগুলো সেন্টার খোলা থাকে প্রতি শুক্র-শনিবার। নিচের ছবিতে ক্লিক করে জেনে নিন কোথায় কোথায় আছে সেন্টারগুলো। প্রতিটি সেন্টারের Coordinator এর নাম্বার দেয়া আছে। তাকে সরাসরি কল করে চলে আসুন আপনার শিশুকে নিয়ে।

Kids Time Center Location

 

Get parenting article to your inbox

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

Kids Time will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.