Home > News > অক্টোবরে আসছে Evaly- Kids Time মেলা ২০১৯

অক্টোবরে আসছে Evaly- Kids Time মেলা ২০১৯

Light of Hope Ltd. বিগত বছরের মত এই বছরেও আয়োজন করতে চলেছে ২দিনব্যাপী শিশুদের জন্য দেশের সবচেয়ে বড় মেলা Kids Time মেলার। প্রায় ১৫,০০০ হাজার শিশু ও অভিভাবকদের অংশগ্রহণের লক্ষ্য নিয়ে এ বছর ২৫-২৬ (শুক্র ও শনি) অক্টোবর বাংলাদেশ শিশু একাডেমী প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে কিডস টাইম মেলা।

সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা সারাদিন ব্যাপী শিশু ও অভিভাবকদের নানা আয়োজনে সাজানো হয়েছে এবারের কিডস টাইম মেলা। বরাবরের মত এইবারও শিশু আর অবিভাবকদের জন্য থাকছে আলাদা জোন। ৩ থেকে ১২ বছরের শিশুদের জোনটি মূখরিত থাকবে অনেক অনেক ক্রিয়েটিভ বাচ্চাদের কলকাকলিতে। শিশুরা যখন আর্ট ক্রাফটের কাজে ব্যস্ত থাকবে তখন অভিভাবক জোনে চলতে থাকবে আলাদা রকমের মেলার সব আয়োজন।

কিডস টাইম মেলায় অংশ নিতে এবারও ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে থেকে অভিভাবক এবং শিশুরা যোগ দিবে। আগে থেকে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে মেলায় অংশ নিতে।

মেলার রেজিস্ট্রেশন লিঙ্ক (এখানে ক্লিক করুন)

শিশু একাডেমীর মূল মঞ্চটিতে আয়োজন করা হচ্ছে পাপেট শো সহ নানান মজাদার আয়োজন। এই প্রথমবারের মত থাকছে পাপেট বুথ। যেখানে আপনি এবং আপনার বাচ্চা দুজনই একসাথে অংশগ্রহন করতে পারবেন, করে ফেলতে পারবেন নিজেদের একটি ছোট পাপেট শো। আনন্দের এই মূহর্তটি ধারণ করে নিয়ে যেতে পারবেন মুঠোফোনে।শিশুদের জোনে তারা যেসব আর্ট ক্র্যাফটের কাজ করবে তার সবই তারা বাসায় নিয়ে যেতে পারবে।

দেশের সবচেয়ে বড় শিশুদের এই মেলার স্পন্সর করছে evaly. মেলাতে বিভিন্ন মজার কাজের বাইরেও থাকছে শিশুদের এবং অভিভাবকদের জন্য বিভিন্ন স্টল। সেখানে Goofi, IkriMikri, Styline, Yoda, Babuland সহ অন্যরা থাকছে তাদের বিভিন্ন প্রোডাক্ট এবং সেবা নিয়ে। মেলায় আগত অভিভাবক এবং শিশুদের যেকোনো প্রাথমিক সেবার জন্য থাকছে Doctorola.

বিশাল শিশুদের এই মেলায় অংশগ্রহণ করতে চাইলে করতে হবে Registration. থাকছে মেলায় Spot Registration এর ব্যবস্থাও। বিভিন্ন স্কুল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানও তাদের শিক্ষার্থীদের বা শিশুদের নিয়ে সরাসরি মেলায় অংশ নিতে পারবে।

বয়স এবং আগ্রহের কথা বিবেচনা করে কিডস টাইম শিশুদের জন্য রাখছে ভিন্ন দুটি জোন। ৩ থেকে ৬ বছরের শিশুদের জন্য রয়েছে জুনিয়র জোন। যেখানে মুলত শিশুরা তাদের আগ্রহ এবং ইচ্ছা অনুযায়ী আঁকতে পারবে ছবি,বানাতে পারবে ক্রাফটও।

৭ থেকে ১০+ বছরের শিশুদের জন্য থাকছে Senior জোন। এই জোনের শিশুরা নিজেদের খুশিমত বাছাই করে নিতে পারবে তাদের ক্রাফটের ম্যাটারিয়াল, করতে পারবে ড্রইং এবং ইচ্ছেমত ডিজাইন। শিশুদের কাজ করার জন্য উল, ফোম পেপার, ফোম বল, পপ স্টিক ইত্যাদি সহ থাকছে আরও নানান ম্যাটিরিয়ালের সমাহার।  তাদের এই পুরো কার্যক্রমগুলো তারা করবে আনন্দ নিয়ে একদমই তাদের মনের মত করে। এক্ষেত্রে তারা সহায়তা চাইতে পারবে কিডস টাইম ফ্যাসিলেটারের কাছেও।

বাচ্চাকে নিয়ে ঘুরতে বাহিরে গেলে বাবা-মা প্রথমেই যে বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত হন তা হল নিরাপত্তা। Kids Time এর এই মেলায় থাকছে, শিশুদের জন্য বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। প্রতিটি জোনে থাকছে কিডস টাইমের ফ্যাসিলেটরসহ বেশ কিছু Volunteer. যারা সার্বক্ষণিক খেয়াল রাখবে আপনার ছোট সোনামনির দিকে।

থাকছে অসংখ্য গল্পের বইয়ের সমাহার। গল্পপ্রেমী শিশুরা স্পটে বসে পড়ে নিতে পাড়বে গল্পের বইগুলো, চাইলে সেগুলো কিনেও নিয়ে যেতে পারবে বাসায়।

শিশুদের বিকাশের জন্য কিডস টাইম মেলায় পাওয়া যাবে অনেক রকম Activity বইসহ নানান জিনিস। বয়সভেদে পাওয়া যাবে এইসব বই ও জিনিসগুলো।

শিশু এবং অভিভাবকদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে রাজধানীর প্রায় প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে গড়ে তোলা হয়েছে কিডস টাইম সেন্টারগুলো। কিডস টাইমে ভর্তি সংক্রান্ত সব তথ্যের জন্যেও থাকছে Information booth-ও।

আপনার শিশুর লুকিয়ে থাকা সৃজনশীলতা বের করে আনতে বিভিন্ন ধরণের সৃজনশীল কাজের বুথ সাজিয়ে রাখছে কিডস টাইম মেলা। সেখানে শিশুরা নিজেদের মতো করে কাজ করবে, আনন্দ করবে এবং একই সাথে নিজেকে নতুন করে আবিষ্কার করতে শিখবে।

সারাদিনব্যাপী চলা ক্রিয়েটিভ শিশুদের এই মেলায় অংশগ্রহন করে আপনার শিশুর সুপ্ত প্রতিভাগুলোকে জাগ্রত করতে সহায়তা করুন।

মেলায় যোগ দিতে এখনই রেজিস্ট্রেশন করে ফেলুন।

রেজিস্ট্রেশন লিঙ্ক (ক্লিক করুন)