যেভাবে আপনার Class 1-3/ Grade 1-3 পড়ুয়া শিশুর Math Skills বাড়াবেন

যেভাবে আপনার Class 1-3/ Grade 1-3 পড়ুয়া শিশুর Math Skills বাড়াবেন

July 1, 2018 Development 0

২ অংকের সংখ্যা যোগ করা, ঘড়ি দেখে সময় বলা, টাকা গুনতে পারা- এসবই Class 1-3 এ পড়া বাচ্চারা আস্তে আস্তে শিখতে থাকে। শিক্ষকরা স্কুলে বিভিন্ন একটিভিটির মাধ্যমে শেখাবে। স্কুলে পড়াকালীন তার Math Skills এমনি ডেভেলপ করতে থাকবে। কিন্তু, বাসায় বিভিন্ন ঘরোয়া কাজের মাধ্যমে আপনি বাচ্চাকে আরও পারদর্শী করে তুলতে পারেন। একই সাথে শিশু বুঝবে গণিত বাস্তব জীবনেরই অংশ।

চলুন জেনে নেই ৮টি মজার পদ্ধতি যা Class 1-3/ Grade 1-3 পড়ুয়া শিশুদের Math Skills বাড়াবে-

  • Visual Learning:

১। বাড়ির বিভিন্ন জিনিস ও পরিবারের সদস্যদের ওজন পরিমাপঃ

বাড়ির পোষা বিড়াল, বই, এক গ্লাস পানি ইত্যাদির ওজন জিজ্ঞেস করুন। স্কেল বা ওয়েট মেশিন দিয়ে শিশুকে ওজন পরিমাপ করা শেখান। শিশুকে বলুন নিজের এবং পরিবারের সবার ওজন পরিমাপ করে বলতে। হয়তো সে ঠিকঠিক কোন কিছুই বলতে পারবে না। কিন্তু আস্তে আস্তে শিশু এসব সম্পর্কে একটা পরিষ্কার ধারণা পেয়ে যাবে।

২। হাতঘড়িঃ

আপনার শিশুকে এমন একটা হাতঘড়ি কিনে দিন যেটায় ঘণ্টা, মিনিট, সেকেন্ডের কাঁটা আছে। তাকে বার বার সময় সম্পর্কিত প্রশ্ন করুন। যেমন-

“বাবা-মা কয়টার অফিসে যায়?”

“মার অফিস ১০টায়। এখন ১০.২০ বাজে। তাহলে মা কত মিনিট লেট?”

এভাবে প্রশ্ন করলে আপনার শিশু তাড়াতাড়ি শিখবে।

  • Physical Learning:

৩। তাস ও UNO খেলুনঃ

শিশুকে সংখ্যার ধারণা দিতে আপনি শিশুর সাথে তাস ও UNO খেলতে পারেন। শিশু তাড়াতাড়ি যোগ-বিয়োগ শিখবে।

৪। শিশুর সাথে কেনা-বেচার খেলা খেলুনঃ

আপনি শিশুর সাথে পুরনো বই, ম্যাগাজিন, খেলনা ইত্যাদি কেনা-বেচার খেলা খেলতে পারেন। কাগজ দিয়ে ৫টাকা, ১০টাকা, ২০টাকা, ৫০টাকা, ১০০টাকার নকল নোট বানিয়ে নিন। বই কেনার-বেচার সময় শিশুকে টাকার যোগবিয়োগ নিজে করতে দিন। এই প্রক্রিয়ায় শিশু টাকার জমা-খরচের প্রাথমিক ধারণা পাবে।

৫। পরিবারের সবার উচ্চতা, ওজন মাপাঃ

শিশুকে বলুন পরিবারের সবার উচ্চতা ও ওজন মাপতে। শিশুরা পরিবারের সদস্যদের ওয়েট মেশিনে দাঁড়া করিয়ে, নিজেই রিডিং নেবে। তাকে তুলনা করতে শেখান। জিজ্ঞেস করুন-

বাবার ওজন মার থেকে কত কেজি বেশি?”

এই পরিবারে কে সবচেয়ে বেশি লম্বা?”

এতে শিশু নিজেই ওজন, উচ্চতার একক, যন্ত্রের ব্যবহার শিখে যাবে। একই সাথে এইসবের মধ্যে তুলনা করতে শিখবে।

৬।বোর্ড গেমসঃ

শিশুর সাথে লুডু, মনোপলি, ক্যারম ইত্যাদি বোর্ড গেম খেলুন। শিশু খেলতে খেলতে সংখ্যা, যোগ-বিয়োগ, টাকা, কোণের ধারণা পাবে।

৭। কয়েন দিয়ে খেলাঃ

এটা পরিবারের সবাই একসাথে খেলা যাবে। একটা ছক্কা আর বেশ কিছু ১টাকা, ২টাকা এবং ৫টাকার কয়েন লাগবে (প্রতিটি অন্তত ৫টা করে)। ২জন ২জন গ্রুপ করে নিতে পারেন। যে গ্রুপের ছক্কায় যত উঠবে, তাদের কয়েন নিয়ে সেটাকে পুরন করতে হবে। যেমন ধরুন, ছক্কায় ৭ উঠল। এটাকে ২টাকার ৩টা কয়েন আর ১টাকার ১টা কয়েন দিয়ে পূরণ করা যাবে। আবার, ৫টাকার ১টা কয়েন আর ২টাকার ১টা কয়েন দিয়েও পূরণ করা যাবে। সব কয়েন নেওয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত খেলা চলবে। যে দল যত বেশি পরিমাণ টাকা নিতে পারবে তারাই জিতবে।

এই খেলার মাধ্যমে আপনার শিশুর গ্রুপিং স্কিল, গণনা করার ক্ষমতা, এবং বিবেচনাবোধ উন্নত হবে।

  • Auditory Learning:

৮। অনুমানের খেলা (Guessing Games):

অবসর সময়ে এটা করতে পারেন। শিশুকে বলতে পারেন ৩০-৫০ এর মধ্যে যেকোনো একটা সংখ্যা ধরতে। এর পর জিজ্ঞেস করতে পারেন, সংখ্যাটি জোড় না বিজোড়? প্রথম অংকটি ৩/৪/৫? ইত্যাদি। আবার আপনি সংখ্যা ধরুন, শিশু বলুন প্রশ্ন করে করে অনুমান করে সঠিক সংখ্যা বের করতে।

এই ধরণের খেলায় আপনি শিশুর গণিতের প্রতি আগ্রহ বাড়াতে পারবেন। একই সাথে শিশুর সাথে বাবা-মা হিসেবে আপনার সম্পর্ক সহজ ও আন্তরিক হয়ে উঠবে।

শিশুদের সুন্দর চরিত্র গঠনে নীতিকথামূলক কাহিনী অনেক বড় ভূমিকা পালন করতে পারে। আমাদের  পার্টনার ToguMoguথেকে নিতে পারেন ঈশপের নীতিকথা সিরিজটি। সিরিজের রয়েছে ১০টি বই যা ৮-১২ বছরের শিশুদের কথা মাথায় রেখে সাজানো হয়েছে।

বইগুলো কিনলে ফ্রী হোম ডেলিভারি পেয়ে যাবেন।

শিশুদের কল্পনাশক্তির বিকাশের জন্য তাকে কিনে দিতে পারেন মজার মজার ছড়া ও গল্পের বই। সুকুমার রায় একজন জনপ্রিয় শিশু সাহিত্যিক। তিনি অনেক চিরায়ত শিশুসাহিত্য রছনা করে গেছেন। আমাদের সুকুমার রায় সিরিজে রয়েছে ১৩টি বই।

বইগুলো তে ফ্রী হোম ডেলিভারী রয়েছে।