বাচ্চার সাথে ধমকের পরিবর্তে যে উপায় অবলম্বন করা উচিৎ

বাচ্চার সাথে ধমকের পরিবর্তে যে উপায় অবলম্বন করা উচিৎ

April 4, 2018 Parenting 0

আমরা সবাই জানি বাচ্চা সামলানো বাবা, মা এর পক্ষে ঠিক কতটা কষ্টকর। যদিও তাদেরকে Threat বা গালি বা ধমক দেয়া কোন বাবামারই পছন্দ না তাও মাঝে মাঝে আমরা তা করেই ফেলি।নিচে একটি চার্ট দেয়া হল যেখানে সচরাচর যেসব বিষয় নিয়ে আমরা বাচ্চাদের উপর রাগ করি তা বর্ণিত আছে এবং ধমকের পরিবর্তে ঠিক কিভাবে তাদেরকে বারণ করা যায় কিছু করতে তাও বর্ণিত আছে।

যে কাজ করতে বলতে চান যা আপনার বলা উচিৎ নয় যা আপনার বলা উচিৎ যে উপকারিতা পাবেন
১. এখনই ঘুমাতে যাও তুমি যদি এখনই না ঘুমাতে যাও আমি কিন্তু তাহলে একদম রেগে যাবো। তোমার ঘুমানোর সময় হয়ে গেছে। আপনার বাচ্চা বুঝতে পারবে সব কিছুরই একটা নির্দিষ্ট সময় আছে।
২. প্লেটের সমস্ত খাবার শেষ করা সমস্ত খাবার শেষ না করে তুমি উঠতে পারবা না। খাবার পুরোপুরি না শেষ করলে পরে ক্ষুধা লাগবে আর তখন কোন খাবার পাবে না। সে বুঝবে যে একবার সবার খাওয়া শেষ হয়ে গেলে রান্নাঘর বন্ধ হয়ে যাবে তখন আর খাবার পাওয়া যাবে না।
৩.হোম ওয়ার্ক করা হোম ওয়ার্ক শেষ না করা পর্যন্ত কোন খেলাধুলা চলবে না। তুমি যদি তাড়াতাড়ি হোম ওয়ার্ক শেষ কর তাহলে তোমাকে বাইরে খেলতে যেতে দিব। এই কথাতে শাস্তির পরিবর্তে পুরস্কার পাওয়াটিকেই বেশি প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে।
৪. দাঁত ব্রাশ করা দাঁত না ব্রাশ করলে কোন গল্প শুনাবো না। এখন ঘুমানোর সময় হয়ে গেছে। কিন্তু ঘুমোতে যাবার আগে আমরা সবাই কি করি? এটা তাকে প্রতিবার মনে  করিয়ে দিবে যে ঘুমাবার আগে ব্রাশ করা একটা রুটিন।
৫. দোকানে গিয়ে বিরক্ত না করা তুমি যদি আমার কথা না শুনো তাহলে বাসায় গিয়ে টিভি দেখা বন্ধ। আমাকে কি তুমি প্রয়োজনীয় জিনিসগুলি খুঁজতে/ কিনতে সাহায্য করতে পারবে? এটা তাদেরকে বড়দের মত দায়িত্ব নেয়ার অনুভুতি জাগাবে। আর আমরা সবাই জানি বাচ্চাদের সাথে বড়দের মতো আচরণ করলে তারা এটা খুবই পছন্দ করে।
৬. নিজের ঘর পরিষ্কার রাখা তোমার ঘর যেমন নিজে নোংরা করেছো তেমনি নিজে নিজে পরিষ্কার করো। তা না হলে না খেয়ে থাকতে হবে। যেহেতু এটা তোমার ঘর তাই তোমাকেই এটা পরিষ্কার রাখতে হবে যেমন আমি আমার ঘর রাখি। এভাবে বললে আপনার বাচ্চা বুঝবে যে সে যতই ছোট হোক না কেন কিছু কিছু কাজ আছে যা সবাইকে করতে হয়। ছোট বা বড় কোন ব্যাপার না।
৭.ভাই বোনের সাথে ঝগড়া/ মারামারি না করা তোমরা যদি আর একবার মারামারি করো তাহলে দুইজনেরই খেলা বন্ধ। মারামারি করলে কোন সমস্যার সমাধান হবে না। তুমি তোমার ভাই/ বোনকে ভালভাবে বল, দেখবে সে ঠিকই শুনবে। এটা তাকে বুঝতে শিখাবে যে কারও সাথে ভালভাবে কথা বললে সব কিছু সম্ভব। অযথা মারামারি করার প্রয়োজন পরে না।
৮. গাড়িতে চুপচাপ বসে থাকা তোমরা যদি আর একবার চেঁচামেচি করো তাহলে আমি গাড়ি ঘুরায় একদম সোজা বাসায় ফেরত নিয়ে যাব। দেখ, আমি গাড়ি চালাচ্ছি। তোমাদের চিল্লাচিল্লিতে আমি মনোযোগ দিতে পারছি না। এভাবেই চলতে থাকলে যেকোনো সময় এক্সিডেন্ট হয়ে যেতে পারে। তোমরা কি তা চাও? এটা তাদের বুঝাবে সব কিছুরই একটা লিমিট থাকে। সব সময় সব কিছু করা যায় না।

 

সন্তানকে সঠিকভাবে গড়ে তোলার বিভিন্ন টিপস এবং অনলাইনে ফ্রি কোর্স করুন Teachers Time থেকে। বাংলাদেশের প্রথম অনলাইন Parenting Course. নিচের ছবিতে ক্লিক করে করে ফেলুন রেজিস্ট্রেশন। 

পড়ুনঃ ৫ টি নিয়ম শিশুর হাতে Smartphone দেয়ার আগে

Get parenting article to your inbox

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

Kids Time will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.