গুছিয়ে লিখার অভ্যাস গড়ে তুলি ছোট বয়স থেকেই

গুছিয়ে লিখার অভ্যাস গড়ে তুলি ছোট বয়স থেকেই

August 7, 2019 Creativity 0

অভিভাবকদের সব সময়কার চাওয়া আমাদের সন্তানেরা যেন একটু গোছালো হয়।তার কথা-লিখা বা আচরণে সে যেন গোছানো স্বভাবের হয়। এবং এই গোছানোটা শুধুমাত্র তাদের কাজে না তাদের চিন্তা-ভাবনাতেও যেন তার প্রতিফলন হয়। 
গোছানো স্বভাব শিশুদের মাঝে একদিনেই তৈরি হবেনা।এটি নিয়মিত প্র্যাকটিসের মাধ্যমে আস্তে আস্তে তৈরি হবে।

৮০-৯০ দশকের শিশুদের তাদের বাবা-মা উৎসাহ দিত ডায়েরী লিখার জন্য।আমরাও সেই পদ্ধতি কাজে লাগাতে বলব। ছোটবেলা থেকেই ডায়েরী লিখার অভ্যাস করলে শিশুদের মাঝে গুছিয়ে লিখার অভ্যাস গড়ে উঠবে।

https://www.facebook.com/kidstimebd/videos/454839592021481/

শিশুর সাথে বসে রঙিন কাগজ দিয়ে কিছু নোটবুক তৈরি করুন।

স্বপ্ন লিখার নোটবুক

শিশুরা ছোটবেলায় অনেক কিছুই হতে চায়। ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, সায়েন্টিস্ট, পাইলট ইত্যাদি। স্বপ্ন লিখার এই নোটবুকে শিশুকে নিয়ে তার স্বপ্নগুলো লিখুন। তাকে তার ইচ্ছেগুলো লিখতে উৎসাহিত করুন।এর পরের কাজটি হবে সে স্বপ্ন পুরনের ধাপগুলো একসাথে বসে লিখে ফেলা।ধাপগুলো লিখা খুবই জরুরী। যেমন ধরুন আপনার শিশুর ছোট্ট একটি স্বপ্ন সে বড় হয়ে সায়েন্টিস্ট হতে চায়। সেজন্য তার শরীর সুস্থ রাখতে এখন থেকেই নিয়মিত খেতে হবে, পাঠ্য বইয়ের পাশাপাশি অন্য আরও বই বড়তে হবে, এমন সব টিভি প্রোগ্রাম খুঁজে খুঁজে দেখতে হবে যা দেখে তার সায়েন্সের প্রতি আগ্রহ আরও বাড়বে। এই প্রতিটি কাজই ধাপ আকারে লিখতে উৎসাহিত করুন শিশুকে।

ধাপগুলো লিখার ক্ষেত্রে অবশ্যই মাথায় রাখবেন শিশুকে প্রশ্ন করে তার মত করেই ধাপগুলো লিখতে হবে।সে নিজে যখন লিখবে তখন তার কাজগুলো অবশ্যই মেনে চলবে। মজার ব্যাপার হল সে যে কোনও কিছুই হতে চাইবেনা কেন দুইটি কাজ তাকে অবশ্যই মেনে চলতে হবে-

  • নিয়ম মেনে চলা এবং
  • পুষ্টিকর খাবার খাওয়া

তাই শিশুর স্বপ্ন বা ইচ্ছে যাই হোকনা কেন তাকে উৎসাহ দিন কাজের ধাপগুলো লিখে ফেলতে।এবং এভাবে একটি ভালো অভ্যাস গড়ে তুলুন শিশুর মাঝে।

আমার প্রশ্ন লিখিনোটবুক

শিশুরা সকল বিষয়েই অনেক আগ্রহী এবং উৎসাহী হয়। তাদের অনেক প্রশ্ন থাকে। এবং জানতে চাওয়ারও তাদের শেষ নেই। গবেষণা বলে যে একটি ৪ বছরের শিশু দিনে গড়ে ৪৩৭টি প্রশ্ন করে এবং এখানে বেশিরভাগ প্রশ্ন থাকে, “কেন?” কারণে অকারণে প্রশ্ন করা শিশুদের কৌতূহলী আচরন।তাই সকল প্রশ্ন একসাথে লিখে ফেলার অভ্যাস গড়ে তুলুন। দিনের একটা সময় কাজে লাগান প্রস্নগুলোর উত্তর খুঁজে পেতে।যে উত্তরগুলো আপনার জানা নেই সেগুলো ইন্টারনেট ঘেটে ভিডিওর মাধ্যমেও বোঝাতে পারেন।

আমার আঁকার খাতা

শিশুরা আঁকতে অনেক পছন্দ করে।তাই এমন একটি আঁকার খাতা তার সাথে থাকবে যেখানে সে সারাদিন যা কিছু আঁকতে চাইবে তার সবকিছু এঁকে রাখবে। আঁকিবুঁকি, কাটাকাটি যা ইচ্ছে তা করতে পারে এই খাতায়।

আমার আনন্দময় মুহুর্ত

আমরা চাই আমাদের শিশুদের নিয়ে আনন্দময় মুহুর্তগুলোকে প্রিজার্ভ করে রাখতে। এমন একটি নোটগুক আপনি আপনার শিশুর সাথে বানাতে পারেন যেখানে দুজন একসাথে এই কাজটি করতে পারেন। নোটবুকে শিশু তার আনন্দময় মুহুর্তগুলোকে ছবি কেটে তা লাগাতে পারে।প্রতিদিন না করে কিছুদিন পর পর করতে পারেন এই ধরণের কাজ। তাতে শিশুর আগ্রহ বাড়বে এবং শিশুর সাথে আনন্দময় মুহূর্তও কাটবে।

আমার ছোট্ট ডায়েরী

ছোটবেলা থেকেই লিখার অভ্যাস করলে শিশুদের একই সাথে গুছিয়ে লিখার অভ্যাস হবে এবং লিখার সময় একই ঘটনা আবার মনে করে লিখবে বলে Observation power বাড়বে। লিখতে লিখতে শব্দভান্ডার আরও সমৃদ্ধ হবে এবং পরবর্তিতে গুছিয়ে কথা বলতে পারবে। কারও সামনে কথা বলতে ভয় পাবেনা।

……………………………………………………………………………………………………………………………….

আমাদের Kids Time এর শিশুরা এই ধরণের মজাদার সব কাজ করে। আপনার শিশুকে সৃজনশীল হিসাবে গড়ে তোলা এবং সুন্দর সময় কাটানোর সুযোগ তৈরি করে দেয়ার জন্য কাজ করছি আমরা। আপনার শিশুকে নিয়ে আমাদের সেন্টারে চলে আসতে পারেন রেজিস্ট্রেশন করে।

রেজিস্ট্রেশন করতে ক্লিক করুন নিচের ছবিতে।

আমাদের সেন্টারগুলোর ঠিকানা এবং নাম্বার জানতে ক্লিক করুন নিচের লিঙ্কে।

Kids Time Center Address

লিখাটি লিখেছেন –
Tahmina Rahman
Oparetion Head and Co-founder
Kids Time

 

Get parenting article to your inbox

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

Kids Time will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.