আপনার শিশুর মেধার বিকাশের জন্য যে ৪ টি Core Values মেনে চলবেন

আপনার শিশুর মেধার বিকাশের জন্য যে ৪ টি Core Values মেনে চলবেন

July 16, 2018 Creativity Parenting 0

 

কিডস টাইমের সেন্টারগুলো চালু করার পর থেকেই কিছু বিষয় আমরা সবসময় মেনে চলার চেষ্টা করি এবং অভিভাবকদেরকেও উৎসাহিত করি যেন তারা বাসায় তাদের শিশুদের সাথে এই বিষয়গুলো মেনে চলেন। এদেরকে আমরা কিডস টাইমের Core Values হিসাবে চিহ্নিত করেছি। শিশুদের সাথে বেশ কিছু বছরের কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে এগুলো আমরা শিখেছি।

আমাদের বিশ্বাস যদি অভিভাবকরা এই Core Values তাদের সন্তানদের ক্ষেত্রে মেনে চলেন তাহলে শিশুদের ভবিষ্যৎ মানসিক উন্নতির জন্য এগুলো কাজে দিবে। এবং পাশাপাশি যদি শিক্ষকরা তাদের ক্লাসে এই বিষয়গুলো মেনে চলেন তাহলে স্কুলেও শিশুরা হয়ে উঠবে অনেক আত্মবিশ্বাসী এবং সৃজনশীল।

চলুন জেনে নেই সেই Core Values কি কি। 

প্রতিটি শিশু আলাদা

এটা আমরা সবাই জানি যে প্রতিটি শিশু আলাদা। তারা আলাদাভাবে শিখে, আলাদাভাবে ভাবে, আলাদাভাবে কাজ করে। ভাইবোনরা, এমনকি জমজ ভাইবোন হলেও তারা আলাদা। কিন্তু আমরা সবার কাছ থেকে একই ধরণের প্রত্যাশা করি। স্কুলের ক্লাসে ৫০ জন শিশুকে একইভাবে লেকচার দিয়ে শিখিয়ে আমরা আশা করি যে প্রতিটি শিশু একইরকম শিখবে। অথচ কোন শিশু শুনে শেখে, কোন শিশু হাতে-কলমে করে শেখে, কোন শিশু দেখে শেখে।

আমরা আমাদের সেন্টারে তাই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছি যেন আমরা প্রতিটি শিশুর ভিন্নতাকে লালন করতে পারি এবং সেই অনুযায়ী আলাদা করে কাজ করতে পারি। আমরা বিশ্বাস করি প্রতিটি শিশুই সৃজনশীল। এবং আমাদের কাজ হচ্ছে তাদের সেই সৃজনশীলতাকে বের করে আনা।

আমরা আমাদের একটি ব্যাচে ২০ জনের বেশি শিশু নেই না। এবং প্রতি ২০ জনের জন্য আমাদের অন্তত ৪ জন Facilitator থাকে। তার মানে প্রতি ৫ জন শিশুর জন্য গড়ে ১ জন করে রাখা হচ্ছে। পৃথিবীর আর কোন আফটার স্কুল প্রোগ্রামে এরকম Ratio মেনে চলা হয় বলে আমরা জানি না।

কিন্তু এতে করে আমরা প্রতিটি শিশুকে আলাদা করে তার নেচার অনুযায়ী তাকে সময় দিতে পারি।

প্রতিটি শিশুই আলাদা, তাই তাদের কাজগুলোও হবে আলাদা।

আমরা তুলনা করি না

আমরা কখনই একটি শিশুর কাজের সাথে আরেকটি শিশুর কাজকে তুলনা করি না। যেহেতু আমরা বিশ্বাস করি প্রতিটি শিশুই আলাদা, তাই তাদের কাজগুলোও হবে আলাদা আলাদা। আমরা কখনও বলি না যে তোমার কাজ ওর চেয়ে ভালো হয়েছে বা খারাপ হয়েছে। এতে করে শিশুর আত্মবিশ্বাস কমে যায়।

আমরা অভিভাবকদেরকেও এটি করতে না করি। আমাদের সেন্টারে তো অবশ্যই না। এমনকি বাসায় বা স্কুলে থাকাকালিন সময়েও এই ধরণের তুলনা না করতে উৎসাহিত করি। যখন আপনি আপনার শিশুকে অন্য শিশুর সাথে, এমনকি নিজের ভাইবোনের সাথেও তুলনা করবেন, সেটি আপনার শিশুর মনে খুব খারাপ প্রভাব ফেলে এবং এতে করে শিশুর মধ্যে আত্মবিশ্বাসের অভাব তৈরি হয়। সে ভুল করতে ভয় পায় এবং নতুন কিছু করার চেষ্টা করে না।

প্রতিটি শিশুই আলাদাভাবে চিন্তা করে, এবং সবগুলো চিন্তাই সুন্দর।

 

আমরা ভুল করতে উৎসাহ দেই

আমরা ভুল করতে উৎসাহ দেই। শিশু যদি কখনও ভুল না করে তাহলে সে নতুন কিছু শিখবেই বা কিভাবে? আমরা তাদের নিজের মতো করে নতুন কিছু করতে উৎসাহ দেই।

আমরা আমাদের শিক্ষাব্যাবস্থা এমনভাবে চালাচ্ছি যেখানে ভুল করাটা হচ্ছে মস্ত বড় কোন অপরাধ। এই ব্যাবস্থা শিশুকে সৃজনশীল হওয়ার পথে একটা বড় বাধা। আমরা সেই বাধাকে অতিক্রম করতে চাই আমাদের সেন্টারে।

আমরা অভিভাবকদের তাই উৎসাহ দেই যেন তারা শিশুদের ভুল করতে উৎসাহ দেয়। নতুন কিছু করতে, নিজের মতো করে চেষ্টা করার সুযোগ করে দেয়। আর তাতে করে তাদের ভুল হবে, এবং সেটিকে মারাত্মক কোন অপরাধ হিসাবে না দেখার জন্য। ভুলের জন্য শিশুকে ধমক দেয়া হলে শিশু আর কখনও নতুন কিছু করতে উৎসাহ পাবে না, ভুল করতে ভয় পাবে এবং কখনও অরিজিনাল কিছু করতে পারবে না।

যে শিশু ভুল করতে ভয় পাবে, সে কোনদিন নতুন কিছু সৃষ্টি করার উদ্যোগ নিবে না।

 

আমরা শিশুদের স্বাধীনতা দেই  

যে কারণে শিশুরা আমাদের সেন্টারে আসতে ভালোবাসে, তার গোপন রহস্য হল আমরা শিশুদের ওই স্বাধীনতাটা দেই যেন যে নিজেকে প্রকাশ করার সুযোগ পায়। তারা ভাবে কিডস টাইম এমন একটি জায়গা যেখানে তারা সত্যিকারভাবে নিজেকে প্রকাশ করতে পারে, কেউ এতে কিছু মনে করবে না। এবং যখন আপনি এই সুযোগটা তাকে দিবেন, তখন দেখবেন শিশুরা কত অসাধারণ আইডিয়া বা কাজ করছে।

আমাদের ক্র্যাফটিং, ক্রিয়েটিভ ডিজাইন বা গল্প লেখার কোর্সে আমাদের নিজস্ব একটা গাইডলাইন আছে, আছে একটা কারিকুলাম। কিন্তু সেটি অনেক Flexible, যেন শিশুরা যথেষ্ট স্বাধীনতা পায় তার মতো করে কিছু করার। আমরা প্রতি ধাপে ধাপে নাক গলাতে যাই না। আমরা তাদের বলি তারা যেভাবে ভাবছে সেভাবেই যেন করে।

এবং এটিই আমাদের সবচেয়ে গোপন রহস্য। এই কারণেই শিশুরা আমাদের এখানে আসতে ভালোবাসে।

প্রিয় অভিভাবক এবং শিক্ষকগণ, এই স্বাধীনতাটা আপনি আপনার বাসায় এবং স্কুলে প্রয়োগ করে দেখুন। আপনিও অনেক আনন্দ পাবেন এবং শিশুরাও বাসায় এবং স্কুলের প্রতিটি মুহূর্ত উপভোগ করবে।

 

এই হচ্ছে আমাদের ৪ টি Core Values যেগুলো আমরা আমাদের সেন্টারে মেনে চলার চেষ্টা করি। এবং আমরা আশা করি আমাদের এখানে যেসব অভিভাবকরা তাদের শিশুদের ভর্তি করাবেন তারাও তাদের ব্যক্তিগত জীবনে শিশুদের সাথে সেগুলো মেনে চলবেন। অভিভাবকরা হচ্ছেন আমাদের পার্টনার যারা আগামী ১ বছর আমাদের সাথে পথ চলবেন যেন আমরা দুজন মিলে আপনার শিশুর মধ্যে থেকে সেরাটা বের করে আনতে পারি।

 

বিশেষ অনুরোধঃ

যেসব শিক্ষকরা আমাদের এই লেখাটি পড়ছেন তাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আপনার পক্ষে যতটা সম্ভব এই Valueগুলো আপনি আপনার স্কুলে মেনে চলার চেষ্টা করবেন। পৃথিবীর যত ভালো স্কুলগুলো আছে তারা এইগুলো মেনে চলে এবং এই কারণেই তাদের শিশুরা হয়ে উঠে অনেক বেশি সৃজনশীল এবং ভবিষ্যতের জন্য উপযোগী স্কিল নিয়ে গড়ে উঠে।

………………………………………………………………………………………………………………….

আমাদের Kids Time সেন্টারগুলোতে আগামী ব্যাচের ভর্তি শুরু হয়েছে। ক্লাস শুরু হবে জানুয়ারি ২০১৯ থেকে। কিন্তু তার আগেই অভিভাবকদের সীট বুক করার জন্য রেজিস্ট্রেশন করে ফেলতে হবে। এরপর আমরা অভিভাবকদের ইন্টারভিউয়ের জন্য কল করবো।

আমাদের প্রতিটি সেন্টারে সীট খুব সীমিত। প্রতি ৫ টি আবেদনের মধ্যে ১ জন সাধারণত ভর্তির সুযোগ পায়। এবং আগে যারা আবেদন করেন তারাই আগে সুযোগ পাবেন ভর্তির ব্যাপারে।

বিস্তারিত জানতে নিচের ছবিতে ক্লিক করুন।

প্রতি ৫ টি আবেদনের মধ্যে ১ জন ভর্তির সুযোগ পায় আমাদের সেন্টারে।

 

 

 

Parenting এর উপর বাংলাদেশে প্রথম অনলাইন কোর্স শুরু হয়েছে আমাদের Teachers Time এর পোর্টালে। এই অনলাইন কোর্সের মাধ্যমে একজন অভিভাবক নিজের সন্তানের মানসিক বিকাশ সম্পর্কে জানতে পারবেন এবং শিশুর ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল করার ক্ষেত্রে সঠিক দিকনির্দেশনা পাবেন। অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করে কোর্স করতে পারবেন যেকোনো সময় আপনার স্মার্টফোন থেকেই। নিচের ছবিতে ক্লিক করে চলে যান সরাসরি রেজিস্ট্রেশন লিঙ্কে।

রেজিস্ট্রেশন লিঙ্কঃ https://teacherstimebd.com/auth/register

 

শিশুদের সৃজনশীলতা, সমস্যা সমাধানের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য আমাদের সেন্টারে আমরা নিয়মিত কোর্স রেখেছি ৪-৮ বছর বয়সের শিশুদের জন্য। আপনার শিশুকে নিয়ে চলে আসুন আপনার কাছের কোন একটি সেন্টারে। আমাদের সেন্টারগুলো ঢাকায় ধানমণ্ডি, উত্তরা, গুলশান এবং মিরপুর ডিওএইচএসে আছে এবং চট্টগ্রামেও রয়েছে। বিস্তারিত দেখুন এখানে।

আপনার শিশুকে আমাদের সামার কোর্সে ভর্তি করতে রেজিস্ট্রেশন করুন এই লিঙ্কে গিয়েঃ রেজিস্ট্রেশন লিঙ্ক

অথবা নিচের ছবি ক্লিক করুন।

কোর্স নিয়ে যেকোনো প্রশ্ন থাকলে কল করুন এই নাম্বারেঃ ০১৭৭১৫৮৮৪৯৪

আমাদের সেন্টারগুলোর ম্যাপ 

 

ঢাকার মতো আমাদের চট্টগ্রাম সেন্টারেও ভর্তি শুরু হয়েছে। চট্টগ্রামের অভিভাবকরা চাইলে রেজিস্ট্রেশন করতে পারেন এই লিঙ্কে গিয়েঃ রেজিস্ট্রেশন লিঙ্ক 

অথবা নিচের ছবিতে ক্লিক করেও চলে যেতে পারেন।

 

চট্টগ্রাম সেন্টারে ভর্তি সংক্রান্ত কোন প্রশ্ন থাকলে সরাসরি যোগাযোগ করুন এই নাম্বারেঃ 01745110353