শিশুর ডুডুলিং (Doodling) করার ৫ টি উপকারিতা

শিশুর ডুডুলিং (Doodling) করার ৫ টি উপকারিতা

July 20, 2018 Creativity Parenting 0

 

অনেক সময় শিশুরা দেখা যায় ক্লাসে বসে কলম ঘুরাচ্ছে অথবা আনমনে কিছু একটা ডিজাইন করছে। শিশু তার নিজের অজান্তেই হয়তো doodling করছে। ক্লাসে মনোযোগ দিচ্ছে না বলে ভয় পাবেন না। গবেষণায় দেখা গেছে এই doodling আসলে শিশুর মানসিক উন্নয়নে সাহায্য করে এবং তার স্মরণশক্তি বাড়ায়।

Jackie Andrade তার ২০০৯ সালে প্রকাশিত ‘What does doodling do’ নামের গবেষণায় দেখিয়েছেন যারা doodle করে তারা ২৯% বেশি তথ্য মনে রাখতে পারে (২৯% বেশি স্মরণশক্তি), যারা doodle করে না তাদের চেয়ে। মজার ব্যাপার। তাই না?

স্মরণশক্তি বাড়ানোর পাশাপাশি doodling এর আরও বিভিন্ন cognitive benefits আছে এবং শিশুর মোটর স্কিল বাড়াতে সাহায্য করে। শিশুরা যদি doodling করে তাহলে যে উপকারগুলো হয় সেগুলো দেয়া হল নিচেঃ

১। স্মৃতিশক্তি বাড়ায়ঃ

Doodle করলে লম্বা সময় ধরে মস্তিষ্ক alert থাকে। এতে করে তথ্য process বেশি করা যায়। যখন ক্লাসে শিক্ষক লম্বা সময় ধরে কথা বলতে থাকে, তখন মস্তিষ্ক অনেক সময় আর কাজ করতে চায় না। Doodling এর মাধ্যমে ব্রেইন আবারও সচেতন হয়, ফলে লেকচারার কি বলছে সেটি আবারও প্রসেস করতে সুবিধা হয়।

 

২। স্ট্রেস কমায়ঃ

‘Adult coloring book’ এর নাম শুনেছেন যা কিনা স্ট্রেস কমায়? Doodling করলেও শিশুর উপর একই প্রভাব পড়ে। যেহেতু doodle করা খুব সহজ এবং সিম্পল ধরণের একটা কাজ, তাই এটি শিশুকে সাহায্য করে তার স্ট্রেস কমাতে। স্কুলে লম্বা সময় কাটিয়ে বাসায় আসার পর বিকালে বা সন্ধ্যায় আবার পড়তে বসার আগে একটু doodle করলে শিশুর স্ট্রেস কমে। বিশেষ করে পরীক্ষার আগে এবং পরীক্ষার সময় শিশুর উপর অনেক স্ট্রেস যায়। সেই সময় প্রতিদিন ২০-৩০ মিনিট doodle করলে শিশুর পরীক্ষার ফল আরও ভাল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

 

৩। ফোকাস বাড়ায়ঃ 

আমাদের এখানে অনেক শিশু আসে যাদের মনোযোগ কোন কিছুতে খুব অল্প সময়ের বেশি থাকে না। যেসব শিশুর concentration খুব কম সময় থাকে, তাদের জন্য doodle এর চেয়ে আর ভালো কোন উপায় নেই। গবেষণায় প্রমাণ করা হয়েছে এটা। আর এই জন্যই আমরা আমাদের কোর্সে doodling রেখেছি।

৪। সৃজনশীলতা বাড়ায়ঃ

যেহেতু doodle করার কোন ধরাবাঁধা নিয়ম নেই, তাই শিশু নিজের সৃজনশীলতাকে পুরোপুরি প্রকাশ করার সুযোগ পায় doodle করার মাধ্যমে। Sunni Brown তার বই ‘The Doodle Revolution: The Power to Think Differently’ – এ বলেছেন, doodle আমাদের ব্রেইনের একটি সম্পূর্ণ আলাদা অংশকে activate করে যা সাধারণত সুপ্ত অবস্থায় থাকে। এতে করে শিশু, এমনকি বড়রাও কোন একটা সমস্যার সমাধানে আসতে পারে doodle করতে করতে।

 

৫। অনুভূতি প্রকাশে সাহায্য করেঃ 

Doodle মাঝেমাঝেই আমাদের সুপ্ত মনের বহিঃপ্রকাশ ঘটায়। কোন মানুষ কি ভাবছে বা কি পরিস্থিতি দিয়ে যাচ্ছে সেটির প্রকাশ ঘটে doodle এ। শিশুরা অনেক সময় তাদের মনের ভাব প্রকাশ করতে পারে না ঠিকমতো। মনোযোগ দিয়ে খেয়াল করতে দেখবেন শিশুর করা doodle এক একসময় এক একরকম হয়। Dr Robert Burns এমনকি doodle এর মাধ্যমে মানুষের emotional expression কে diagnose করতেন।

তো, এই হচ্ছে doodle করার উপকারিতা। অনেক অভিভাবকের কাছেই সম্পূর্ণ নতুন তথ্য এগুলো। আমরাও সেটা জানি। তাই অনুরোধ থাকবে পুরো জিনিসটা হেলায় উড়িয়ে না দিয়ে নিজের শিশুর সাথে চেষ্টা করে দেখুন। আমরা আমাদের সেন্টারে নিয়মিত শিশুদের সাথে doodle এর কাজ করি এবং চমৎকার benefit আমরা দেখতে পাচ্ছি শিশুদের উপর। এই জন্য আমরা নিজেরা একটা doodle ডিজাইন বুকও করেছি শিশুদের জন্য। আমাদের সেন্টারে যারা ভর্তি হয় তাদের জন্য সম্পূর্ণ ফ্রি আমরা এটি দিয়ে দেই যেন শিশুরা বাসায়ও প্র্যাকটিস করতে পারে।

এছাড়া অন্য কেউ চাইলে আমাদের পুরো ডিজাইন প্যাকেজটি অনলাইনে অর্ডারও করতে পারেন। আমাদের পার্টনার Togumogu তে পাওয়া যাচ্ছে। অর্ডার করলে ওরা বাসায় ফ্রি ডেলিভারি দিয়ে পৌঁছে দিবে।

প্যাকেজটি পেতে উপরের ছবিতে ক্লিক করুন। 

 

 

আর এরপর শিশুকে কখনও এই ধরণের doodle এর কাজ করতে দেখতে নিষেধ করবেন না। এটি তার নিজের ফোকাস করা এবং শেখার একটা মাধ্যম কেবল।

……………………………………………………………………………………………………………

লেখার ভেতরের ছবিগুলো আমাদের Kids Time সেন্টারের শিশুদের করা এবং Mirpur Center Facilitator নাদিয়া শারমিনের আইডিয়া। 

……………………………………………………………………………………………………………

শিশুদের সৃজনশীলতা, সমস্যা সমাধানের দক্ষতা বাড়ানো, এবং নৈতিকতা ও মূল্যবোধের উন্নতির জন্য আমাদের সেন্টারে আমরা নিয়মিত কোর্স রেখেছি ৪-৮ বছর বয়সের শিশুদের জন্য। আপনার শিশুকে নিয়ে চলে আসুন আপনার কাছের কোন একটি সেন্টারে। আমাদের সেন্টারগুলো ঢাকায় ধানমণ্ডি, উত্তরা, গুলশান এবং মিরপুর ডিওএইচএসে আছে এবং চট্টগ্রামেও রয়েছে। বিস্তারিত দেখুন এখানে।

অথবা নিচের ছবি ক্লিক করুন।

কোর্স নিয়ে যেকোনো প্রশ্ন থাকলে কল করুন এই নাম্বারেঃ ০১৭৭১৫৮৮৪৯৪

আমাদের সেন্টারগুলোর অবস্থান খুঁজে পেতে চলে যান নিচের লিঙ্কে।

আমাদের সেন্টারগুলোর ম্যাপ 

আপনার শিশুকে আমাদের সামার কোর্সে ভর্তি করতে রেজিস্ট্রেশন করুন এই লিঙ্কে গিয়েঃ রেজিস্ট্রেশন লিঙ্ক

 

ঢাকার মতো আমাদের চট্টগ্রাম সেন্টারেও ভর্তি শুরু হয়েছে। চট্টগ্রামের অভিভাবকরা চাইলে রেজিস্ট্রেশন করতে পারেন এই লিঙ্কে গিয়েঃ রেজিস্ট্রেশন লিঙ্ক 

অথবা নিচের ছবিতে ক্লিক করেও চলে যেতে পারেন।

 

চট্টগ্রাম সেন্টারে ভর্তি সংক্রান্ত কোন প্রশ্ন থাকলে সরাসরি যোগাযোগ করুন এই নাম্বারেঃ 01745110353 

 

 

Get parenting article to your inbox

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

Kids Time will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.